করোনা জয় করা বঙ্গবন্ধু মেডিকেলের ডা.আহমাদ হাবিবুর রহিমের কৃতজ্ঞতা বার্তা

প্রকাশিত: ৩:৫৬ পূর্বাহ্ণ, জুন ২, ২০২০, 680 জন দেখেছেন

লাল সবুজ ৭১ ডেস্কঃ-

একটা ঘটনা ইচ্ছে করেই দেরিতে জানাচ্ছি। অযথা প্যানিক ছড়াতে চাইনি স্বজনদের মাঝে। এ মাসের ১৩ তারিখের দিকে আমার জ্বর সর্দি কাশি শুরু হয়। যেহেতু হাসপাতালে আসা যাওয়া চলছিলো তাই করোনা হওয়ার রিস্ক স্বাভাবিক কারণেই বেশি।

সন্দেহ থেকে পরীক্ষা করলাম। ১৬ তারিখে রিপোর্ট আসলো কোভিড পজিটিভ। এরপর থেকে হোম আইসোলেশনে ছিলাম। এ সময়টা কতোটা কঠিন ছিলো সে বর্ণনায় না যাই। পরিবারের সবাই আমাকে নিয়ে যে পরিমান দুশ্চিন্তা করেছে আর কান্নাকাটি করেছে বলে বোঝাতে পারবো না। উল্টো অনেককেই আমার শান্তনা দিতে হয়েছে! যাক আলহামদুলিল্লাহ সিম্পটম সেরে যায় পাঁচ ছয় দিন পরেই। কিন্তু আইসোলেশনটা মেইনটেইন করা সহজ না। ছেলে এসে দরজার কাছে কান্নাকাটি করে কিন্তু কোলে নেই না। আমার স্ত্রী একা একা সন্তান সংসার আমার সেবা যত্ন খাবার দাবার সব কিছু কিভাবে সামলেছেন আল্লাহই ভালো জানেন। আল্লাহ তাকে উত্তম প্রতিফল দিন। আল্লাহর কাছে একান্ত কামনা করি জান্নাতেও যাতে আমরা একসাথে থাকতে পারি।

ঈদের দিন আইসোলেশনের ১৩ তম দিন ছিলো। বাড়ি যাওয়ার প্রশ্নই ওঠে না। অনলাইনেই প্রিয়মুখদের সাথে সাক্ষাৎ সেরেছি। এর মধ্যেই বাসা বদলের ঝক্কি। ১৬ তম দিনে গিয়ে সেকেন্ড স্যাম্পল দিলাম আর বাসাও বদলালাম। আলহামদুলিল্লাহ গত কাল সেকেন্ড টেস্টের রিপোর্ট আসলো। নেগেটিভ এসেছে আলহামদুলিল্লাহ।
এই দুঃসময়ে অনেকেই পাশে এসে দাড়িয়েছেন সাহস দিয়েছেন খোঁজ খবর নিয়েছেন সবাইকে আল্লাহ উত্তম প্রতিফল দিন।

আল্লাহ পাকের অশেষ রহমত এই জীবনের এই পর্বের পরীক্ষাটি তিনি সহজ করে দিয়েছেন। অনেক গুলো রিস্ক ফ্যাক্টর থাকার পরেও তিনি আমাকে খুবই ভালোভাবে সুস্থ করে দিয়েছেন। এটা সুস্পষ্ট ভাবেই আল্লাহর রহমত। নিশ্চয়ই আমাকে নিয়ে তাঁর ভালো কোন পরিকল্পনা আছে। হয়তো অনেক ভালো কোন কাজের জন্য তিনি এ জীবনটা আমাকে আবার ভিক্ষা দিয়েছেন। ইনশাল্লাহ সে উদ্দ্যেশ্য পূরণের চেষ্টা আমার থাকবে। আগে যে মাত্রায় মানুষের পাশে দাড়ানোর চেষ্টা করেছি; নিজেকে মানবতার সেবায় যোগ্য হিসেবে গড়ে তোলার চেষ্টা করেছি ইনশাল্লাহ এ উদ্দ্যেশে শ্রমের পরিমান আরো বাড়ানোর চেষ্টা করবো। আল্লাহ আমাদের তাওফীক দিন। আল্লাহ আমাদের সবাইকে হেদায়াত দিন। মাফ করুন।