তানোরে ফের অবৈধ পুকুর খনন

প্রকাশিত: ৬:১৩ পূর্বাহ্ণ, মে ৪, ২০২০, 678 জন দেখেছেন
সুজন রাজশাহী প্রতিনিধিঃ
রাজশাহীর তনোরে অঘোষিত লকডাউন এবং নীতিমালা লঙ্ঘন করে ফের অবৈধ পুকুর খনন, মাটি বিক্রি ও বিভিন্ন এলাকায় পরিবহন করতে গিয়ে রাস্তা নস্ট করা হচ্ছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।
তানোরের সরনজাই ইউপির সরনজাই সরকার পাড়া গ্রামে এই অবৈধ পুকুর খনন করছেন সরকারপাড়া গ্রামের কাউছার আলী দিগর। স্থানীয়রা বিষয়টি সংশ্লিস্ট প্রশাসনকে অবহিত করেও খনন বন্ধ করতে পারছে না। তারা বলেন, মাটি সিন্ডিকেট চক্রের মাটিদস্যু ভেঁকু ঠিকাদার নওহাটার জনৈক জুয়েল গং সবাইকে ম্যানেজ করে প্রকাশ্যে দিবালোক অবৈধ পুকুর খনন ও মাটি বিক্রি করে এলাকার রাস্তা নস্ট করছে।
স্থানীয়রা আরো জানান ৫ দিন আগেই উপজেলা প্রশাসন ভ্রাম্যমান অভিযান চালিয়ে ৩০ হাজার টাকা জরিমানা ও পুকুর খনন বন্ধ করে দিয়েছিল। কিন্তু গত শনিবার থেকে ফের পুকুর খনন ও মাটি বিক্রি করে রাস্তা নস্ট করা হচ্ছে। তবে কি প্রশাসন এই অবৈধ পুকুর খনন বন্ধ করতে পারছেন না নাকি করছেন না এর নেপথ্যে হেতু কি ? এ ঘটনা এলাকাবাসির মধ্যে চরম উত্তেজনার সৃস্টি হয়েছে উঠেছে সমালোচনার ঝড়।জানা গেছে,সারাদেশের মানুষ যখন করোনা দুর্যোগে স্বেচ্ছায় গৃহবন্দী। আইন করে সন্ধ্যা ৬টার পর মানুষের বাড়ির বাইরে আশা বন্ধ করা হয়েছে তখন দিনরাত সমান তালে এই পুকুর খনন ও মাটি বিক্রি করা হচ্ছে।
স্থানীয়দের অভিযোগ আর্থিক সুবিধার বিনিময়ে প্রশাসনের একশ্রেণীর কর্মকর্তা-কর্মচারীকে ম্যানেজ করেই তারা এসব অপকর্ম করছে।স্থানীয় বাসিন্দা জনৈক আতাউর রহমান, আব্দুর রাজ্জাক ও ইউপি সদস্য মাহাতাব আলী বলেন, পুকুর খনন নিয়ে তাদের কোনো আপত্তি নাই, তবে মাটি বিক্রি ও পরিবহনের সময় মাটি পড়ে রাস্তা নস্ট হচ্ছে এর দায় নিবে কে ? তারা বলেন, কিছুদিন আগেই এরা সরনজাই ইউপির সিধাইড় গ্রামে পুকুর খনন ও মাটি বিক্রি করে ওই এলাকার রাস্তার সর্বনাশ করেছেন, এখন এই এলাকার রাস্তার সর্বনাশ করছেন।
এদিকে মাটি পরিবহন কাজে নিযুক্ত এক ট্রাক্টর চালক বলেন, টাকা থাকলে বাঘের চোঁখ পাওয়া যায় আর এটাতো পুকুর খনন তানোরের সাংবাদিকের লেখায় তাদের পুকুর খনন কাজ বন্ধ হবে না তাদের হাত অনেক লম্বা।এবিষয়ে জানতে চাইলে কাওছার আলী বলেন, বৈধ-অবৈধ বুঝিনা তাদের কন্টাক দিয়েছি তারা কিভাবে খনন করবে সেটা তারাই ভাল বলতে পারবেন।
এবিষয়ে জানতে চাইলে ভেঁকু ঠিকাদার জুয়েল বলেন,ডিসি সাহেবের অনুমতি নিয়ে তারা পুকুর খনন করছেন। এব্যাপারে তানোর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সুশান্ত কুমার মাহাতো বলেন, এ বিষয়ে বিস্তারিত খোঁজখবর নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।