স্ত্রী হত্যার অভিযোগে স্বামী গ্রেফতার

প্রকাশিত: ৭:০৮ পূর্বাহ্ণ, এপ্রিল ২৩, ২০২০, 620 জন দেখেছেন

স্টাফ রিপোর্টার,খাগড়াছড়িঃ

খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলার রামগড় উপজেলার রশ্বিয়া পাড়ায় স্ত্রীকে হত্যার অভিযোগে স্বামী অনন্ত ত্রিপুরা (২৮) কে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বুধবার (২২ এপ্রিল) রাতে তাকে গ্রেফতার করা হয়। পুলিশ সূত্রে জানা যায়,অনন্ত ত্রিপুরা রামগড় উপজেলার ১নং ইউনিয়নের ৩ নং ওয়ার্ডের রশ্বিয়া পাড়ার জরি চন্দ্র ত্রিপুরার ছেলে।

গত ১৮ এপ্রিল বিকালে কাজ শেষ করে বাড়িতে ফেরার পর সাংসারিক বিষয় নিয়ে স্ত্রী রন্দবালা ত্রিপুরার (২২) সাথে ঝগড়ায় লিপ্ত হন। এক পর্যায়ে অনন্ত ত্রিপুরা উত্তেজিত হয়ে হাতে থাকা কোদাল দিয়ে স্ত্রীর মাথায় কোপ দেয়। এতে স্ত্রী রন্দবালা ত্রিপুরা মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। কোদালের আঘাতে তার মাথা থেতলে যায় এবং ঘটনাস্থলেই তিনি মারা যান। পরে স্বামী ও পরিবারের লোকজন নিহতের লাশ দ্রুত দাপন করে ফেলে। নিহতের বাবা রাজ কুমার ত্রিপুরা জানান, ঘটনাটি স্বামী বা তার পরিবারের পক্ষ থেকে তাদের কাছে গোপন রাখা হয়।

ঘটনার দুদিন পর, ২০ এপ্রিল প্রতিবেশীদের কাছ থেকে খবর পেয়ে তারা অনন্ত ত্রিপুরার বাড়িতে ছুটে যান। এ সময় রন্দবালা ত্রিপুরার স্বামী কৌশলে বাড়ি থেকে সরে যায়। গ্রামের স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিদের জিজ্ঞাসাবাদে অনন্ত ত্রিপুরার পরিবারের লোকজন হত্যার কথা স্বীকার করেন। তাদের দুটি কন্যা সন্তান আছে। ছোট মেয়েটির বয়স দেড় বছর।

রামগড় থানার ওসি (তদন্ত) মো. মনির হোসেন বলেন, নিহতের বাবা রাজ কুমার ত্রিপুরা বুধবার (২২ এপ্রিল) বিকাল সাড়ে ৪টায় থানায় এসে মেয়ের হত্যার ঘটনায় একটি এজাহার দাখিল করেন। এরপরই পুলিশ আসামীকে গ্রেফতারে মাঠে নামে।

বুধবার রাত ৯টার দিকে রশ্বিয়া পাড়া এলাকা থেকে আসামি অনন্ত ত্রিপুরাকে গ্রেফতার করা হয়। এদিকে, থানায় সাংবাদিকদের উপস্থিতিতে জিজ্ঞাসাবাদে স্ত্রীকে হত্যার কথা স্বীকার করেছেন অনন্ত ত্রিপুরা। তিনি বলেন, সাংসারিক ব্যাপার নিয়ে তর্কাতর্কির এক পর্যায়ে তিনি তার হাতের কোদাল দিয়ে স্ত্রীর মাথায় আঘাত করেন। এতে রন্দবালা মারা যায়।