চান্দিনায় বরকরই ইউনিয়নের পক্ষ থেকে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ

প্রকাশিত: ৬:১২ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১৬, ২০২০, 884 জন দেখেছেন

কুমিল্লা (জেলা) প্রতিনিধি: কুমিল্লার চান্দিনা উপজেলার ১২নং বরকরই ইউনিয়নে করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় কর্মহীন হয়ে পড়া দিনমজুর, রিকশাচালক, হোটেল শ্রমিক, হতদরিদ্র, দুস্থ ও অসহায় মানুষদের মাঝে সরকারি ত্রাণ সামগ্রী শুকনা খাবার বিতরণ করা হয়েছে।

১৬ এপ্রিল বৃহস্পতিবার দিনব্যাপী বরকরই ইউনিয়ন পরিষদ চত্বরে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়।

উক্ত ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলাম মজুমদার শিপন এর তত্ত্বাবধানে পর্যায়ক্রমে সরকারিভাবে বরাদ্দকৃত (জি আর) ইউনিয়নের ৯টি ওয়ার্ডে ২৫০ জন কর্মহীন মানুষদের মাঝে ১০ কেজি করে চাল, শিশু খাবার সেই সাথে আলু, ডাল, পেয়াজ, বিতরণ করা হয়।

দ্বিতীয় পর্যায়ে চেয়ারম্যানের উপস্থিতিতে কেজি প্রতি ১০ টাকা করে ৬২২ জন পরিবারের মাঝে জন প্রতি ৩০ কেজি করে চাল, এছাড়াও ১২০ জন পরিবারের মধ্যে ৩০ কেজি করে ভিজিপি চাল বিতরন করেন তিনি।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন চান্দিনা উপজেলা সহকারি পল্লী উন্নয়ন কর্মকর্তা বিআর ডি বি অফিস থেকে আগত ট্যাগ অফিসার মোঃ সামছুল মাওলা।

এছাড়াও সার্বক্ষণিক মনিটরিং এর দায়িত্বে থাকা উপজেলা এলজিআরডি কর্মকর্তা আবু সাঈদ,আমার বাড়ী আমার ঘর প্রকল্পের শাখা ব্যবস্থাপক আনোয়ারুল আজীম, ট্যাগ অফিসার কৃষি কর্মকর্তা সুলতান আহমেদ,ইউপি সচিব কামাল হোসেন, ডিলার শাহাদাৎ হোসেন সুমন উক্ত ইউপি আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য সহ সকল ইউপি মেম্বার ও অন্যান্য নেতৃবৃন্দ প্রমুখ।

বিতরনকালে উক্ত ইউপির চেয়ারম্যান সকলের উদ্দেশ্যে বলেন- চান্দিনার সংসদ সদস্য
সাবেক ডেপুটি স্পিকার অধ্যাপক মোঃ আলী আশরাফ এর নির্দেশনায় এফবিসিসিআই এর সিনিয়র সভাপতি মুনতাকীম আশরাফ টিটুর পরামর্শ ক্রমে আমরা দ্রুত ত্রাণ সামগ্রী সবার ঘরে ঘরে পৌছে দেব।তিনি আরোও বলেন সরকারের পক্ষে যথেষ্ট পরিমাণ ত্রাণ সামগ্রী উপজেলা প্রশাসনের কাছে মজুদ আছে। এই সংকট যতদিন চলবে ততদিন প্রয়োজন সাপেক্ষে কর্মহীন মানুষদের মাঝে প্রয়োজনীয় এই ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ কার্যক্রম অব্যাহত রাখা হবে। কাউকে খাবারের জন্য ঘরের বাহিরে আসতে হবে না। সরকারি বরাদ্দের পাশাপাশি নিজস্ব অর্থায়নে বরাদ্দকৃত খাবার সামগ্রীগুলো ঘরে ঘরে গিয়ে পৌঁছে দিয়ে আসবো। শুধুমাত্র করোনাভাইরাস প্রতিরোধে প্রশাসনের বেধে দেওয়া নিয়ম-কানুনগুলো সঠিকভাবে মেনে চলার উদ্ধার্থ আহবান জানান। সেই থেকে সবাইকে নিজ গৃহে অবস্থান করার জোর তাগিদ দেন।