কুমিল্লায় মধ্যরাতে হতদরিদ্রের ঘরে ঘরে খাদ্য সামগ্রী দিচ্ছেন এমপি সীমা

প্রকাশিত: ২:১৪ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ৮, ২০২০, 551 জন দেখেছেন

আলিফ মাহমুদ কাউসার কুমিল্লা প্রতিনিধিঃ

নির্জন রাত যখন কোলাহলমুক্ত নগরী। শহরজুড়ে শুনশান নীরবতা। ঠিক তখনি খাদ্য সামগ্রী নিয়ে নগরীর অলি-গলিতে ঘুরে বেড়ান। কড়া নাড়েন কর্মহীন ও হতদরিদ্রদের মানুষের দরজায়। ব্যক্তিগত অর্থায়নে নিজ হাতে তুলে দেন নিত্য প্রয়োজনীয় খাদ্য সামগ্রী। গত কয়েকদিনে কুমিল্লা নগরীর প্রতিটি ওয়ার্ডে বিপর্যস্ত মানুষের ঘরে ঘরে গিয়ে নিজ হাতে তিনি এসব খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করেছেন। ইতোমধ্যে স্থানীয়দের তোলা ছবি ফেসবুকে ভাইরাল হয়। কুমিল্লা মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য আঞ্জুম সুলতানা সীমার প্রচারবিমুখ কর্মকান্ডে সাড়া জাগায় জনমনে। ফেসুবক জুড়ে অভিনন্দনের ঝড় ওঠে।

গত কয়েকদিনে মধ্যরাতের এসব দৃশ্য মানুষ মোবাইলে তুলে ফেইসবুক ছাড়লে সেখান থেকে সংগ্রহ করা হয়। প্রতি রাতে কুমিল্লা সংরক্ষিত মহিলা আসনের এমপি আঞ্জুম সুলতানা সীমা এসব করছেন।

এমপি সীমার এসব মহতি উদ্যোগকে ইসলামী আদর্শের সাথে তুলনা করে মন্তব্য করেছেন অনেকে। নগরীর ২২নং ওয়ার্ডের মিজানুর রহমান পিটু বলেন- ইপিজেড এ চাকুরী করি এখনো এ মাসের বেতন পাইনি। ঘরে বৃদ্ধ বাবা-মা আছেন। রাত সাড়ে ৯টায় হঠাৎ ঘরের দরজায় কেউ ধাক্কা দিলে মনে হলো বাসা ভাড়ার জন্য হয়তো আসছে। তখন মনটা খারাপ হয়ে গেল। দরজা খুলেই দেখি সীমা আপা সালাম দিয়ে একটি বস্তা দিল। আমি খুশিতে আত্মহারা। আপা চলে যাওয়ার সময় একটি মোবাইল নাম্বার দিয়ে বল্ল প্রয়োজনে ফোন দিবেন। ঘরের ভেতরে ঢুকেই বস্তা খুলে দেখি ৫কেজি চাউল, ৩কেজি পেয়াজ, এক কেজি মুশুর ডাল, ২কেজি আটা, ২কেজি সয়াবিন তেল, ২টি সাবান, ২টি মাস্ক ও ১টি হ্যান্ডসেনিজাইজার। একজন অটোচালককে নিয়েই তিনি এসব সরবরাহ করছেন। এরকম চর্থার আলেয়া বেগম, নুরপুরের শরীফ আহমেদ, ঠাকুরপাড়ার অধ্যক্ষ তাপস পাল সহ আরো অনেকেই তার আবেগ-আপ্লোত বক্তব্য জানালেন। প্রাণ ভরে দোয়া করলেন এই মহিলা এমপি’র জন্য।

তাদের সাথে কথা হলে জানান, রাতের বেলায় একজন মহিলা এমপি নিজে এসে তাদেরকে চাউল ডাল সাহায্য করেছে তাতে তারা অনেক খুমি। সীমা আপা তাদের বাড়িতে যাওয়াতেই তারা খুশি।
এমপি সীমার পিএস জয়ন্ত দেবনাথ বলেন- গত এক সপ্তাহ ধরে আপা ব্যাক্তি গত অর্থায়নে প্রাথমিক ভাবে কুমিল্লা নগরের ২৭টি ওয়ার্ড ও ৬টি ইউনিয়নে ৩টি ভাগে তালিকা করে সাহার্য্য করা আসছি। অসহায় দুস্থদের ১০ কেজি চাউল ডালসহ ৮টি আইটেম, মধ্যবিত্তদের ৫ কেজি চাউল,নি¤œ আয়ের শ্রমিকদের ৮ কেজি চাউলসহ ৮টি আইটেম একটি বস্তা ভর্তি করে দেয়া হচ্ছে। ইতিমধ্যে প্রায় ২হাজার ৪জনকে দেয়া হয়েছে। আর সীমা আপার মোবাইল নাম্বারে যারা ফোন দিচ্ছে তাদের ১০কেজি চাল, ডাল-সবজিসহ খাদ্য সামগ্রী তাহার বাড়িতে পৌছে দেয়া হচ্ছে।

এ বিষয়ে আঞ্জুম সুলতানা সীমা এমপি বলেন- আমাদের মমতাময়ী বাংলার মা জননেত্রী আমাদের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে যতটুকু সামর্থ্য সে অনুযায়ী আমি সাহায্য করছি। এ মহামারী যতদিন থাকবে ততদিন আমার সামর্থ্য অনুযায়ী করে যাব। তবে প্রচার করে না।