কুড়িগ্রামের রাজারহাটে অসহায় মানুষের পাশে ইউএনও

প্রকাশিত: ৮:১১ পূর্বাহ্ণ, মার্চ ৩১, ২০২০, 874 জন দেখেছেন

কুড়িগ্রাম (জেলা) প্রতিনিধি: কুড়িগ্রামের রাজারহাটে সর্বনাশা করোনা ভাইরাস যখন উপজেলার মানুষগুলোকে বিশেষ করে দিনমজুর, রিকশাচালক, ভ্যানচালক, ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী, ভিক্ষুক ও স্বল্প আয়ের মানুষকে নিঃস্ব, অসহায় হয়ে পড়ছে। ঠিক সেই মুহূর্তে অসহায় মানুষগুলোর পাশে গিয়ে দাঁড়ালেন রাজারহাট উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাঃ যোবায়ের হোসেন।

এ ছাড়া তিনি রাজারহাট উপজেলাবাসীকে সর্বোচ্চ সচেতন করতে এবং করোনাভাইরাস ও জনসমাগম প্রতিরোধে সরকারের দেয়া নির্দেশ বাস্তবায়নে দিন-রাত অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন। তিনি অভিযান পরিচালনা করা সময় ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী, রিকশাওয়ালা ও প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর ভাল-মন্দ খবর নেন এবং তাদের সাথে মতবিনিময় করেন।

রবিবার (২৯মার্চ) বিকালে রাজারহাট উপজেলার নাজিখান ইউপির মল্লিকবেগ গ্রামের মৃত নারায়নেরর পুত্র দুখু মিয়া (৫৫)। তিনি পেশায় মুচি তার সঙ্গে মতবিনিময় করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাঃ যোবায়ের হোসেন। এ মতবিনিময়ে বাজারে কেন এসেছেন জিজ্ঞেস করতেই দুখু মিয়া বলেন,বাহে, কয়দিন থাকি কুনো কাজকাম নাই। হামার বাড়িত খাবার নাই। ইয়ার পর যদি বাড়িত বসে থাকং বাহে, ক্যাং করি মোর সংসারটা চলবে?’ এভাবেই তার কষ্টের কথা জানালেন ইউএনও মহোদয়কে। তার কষ্টের কথা শুনে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাঃ যোবায়ের হোসেনের চোখে পানি চলে আসে এবং দুখু মিয়ার দুঃখ কিছুটা লাঘব করার জন্য তিনি নিজ উপার্জন থেকে তাকে আর্থিক সাহায্য করেন এবং আগামীকাল অফিসে এসে কিছু চাল-ডাল-খাবার নিয়ে যেতে বলেন। ওই সময় কয়েকজন ভ্যানচালক আর রিকশাচালক এগিয়ে আসে এবং তাদের দুঃখ-কষ্টের কথা জানান তাদেরকেও আর্থিক করেন তিনি।

রাজারহাট উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাঃ যোবায়ের হোসেন জানায়, সর্বনাশা করোনাভাইরাস প্রতিরোধে উপজেলায় দিনমজুর, রিকশাচালক, ভ্যানচালক, ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী, ভিক্ষুক, স্বল্প আয়ের মানুষকে নিঃস্ব, অসহায় হয়ে পড়েছে। সরকারি সাহায্য এসেছে, আগামীকাল থেকে সাধ্যমত সঠিক ব্যক্তিকে দেওয়ার চেষ্টা করব এবং সমাজের বিত্তবানদের নিকট আমার আকুল আবেদন, আপনারা সাধ্যমতো এই সমস্ত বিপদগ্রস্ত মানুষকে সাহায্য করুন। টাকাপয়সা, ধনসম্পদ মানুষের জন্য, মানুষের প্রয়োজন মিটানোর জন্য, মানুষের কাজে লাগার জন্য। অর্থসম্পদের সদ্ব্যবহারের জন্য এর চেয়ে ভাল উপলক্ষ আর পাওয়া যাবে না।