স্বাধীনতা দিবসের কিছু কথা: কবি ফখরুল ইসলাম খান

প্রকাশিত: ১:৩১ অপরাহ্ণ, মার্চ ২৬, ২০২০, 1032 জন দেখেছেন

লাল সবুজ ৭১ ডেস্ক : দীর্ঘ ২৩ বছর পাকিস্তানির শোষণ -বঞ্চনা আর বৈষাম্যের মধ্যদিয়ে যখন পূর্ব পাকিস্তানের অগ্রযাত্রা। তখন এদেশের মানুষের ভেতর স্বাধীনতার প্রেরণায় এদেশের ত্যাগী ও প্রতিবাদী কিছু কন্ঠস্বর জেগে ওঠে।
বিশেষ করে ২৫ মার্চ পাকিস্তানি শোষকগোষ্ঠীরা গণহত্যা শুরু করে তখন বঙ্গবন্ধু ২৬ মার্চ আলাদা রাষ্ট্রের ঘোষণা দেন। তারপর দীর্ঘ ৯ মাস রক্তক্ষয়ী যুদ্ধে এদেশ স্বাধীনতা অর্জিত হয়। এ স্বাধীনতাকে কেন্দ্রকরে এদেশের ত্যাগ- তিতিক্ষা ও মুক্তিযোদ্ধার অবদান সত্যিই প্রশংসিত। পাকিস্তানি রাষ্ট্রযন্ত্র ও সেনাবাহিনিকে ব্যবহার করে নিরস্ত্র বাঙ্গালীর ওপর।নির্যাতিত -নিপিড়িত বাঙ্গালী ও অবাঙ্গালী হিন্দু-মুসলিম ,একহয়ে স্বাধীনতা সংগ্রামে সহযোগিতা করে। পাকিস্তানি বাহিনী বহুনারী ধর্ষিত,বহু অর্থ সম্পদ বিনষ্ট করে,যার ফলশ্রুতিতে মুক্তিযোদ্ধাদের স্বাধীনতা সংগ্রামের প্রয়োজনীয়তার মনোবল বাড়িয়ে দেয় এবং এদেশকে স্বাধীন তথা মুক্ত করে আলাদা ভূ-খন্ডে আলাদা পতাকা পেয়ে পৃথিবীর মানচিত্রে বাংলাদেশ নামের দেশটির প্রতিষ্ঠিত হয়।