গিটারের বিষাদ সুরে চাইথোইপ্রুর চির বিদায়

প্রকাশিত: ৫:১২ পূর্বাহ্ণ, মার্চ ১৪, ২০২০, 962 জন দেখেছেন

স্টাফ রিপোর্টার,খাগড়াছড়ি: বিষাদে ছুঁয়ে গেছে চারপাশ। কান্নায় শুকিয়ে গেছে পরিবারের চোখের পানি। তারপরও আহাজারি। আহাজারি পরিবার-আত্মীয় স্বজনের। শ্রদ্ধার ফুলে ভরে গেছে চারপাশ। শত শত মানুষের নিরব দাঁড়িয়ে থাকা। আহাজারি বন্ধু মহলের। তাই ব্যান্ডশিল্পী বন্ধুর নিথর দেহের সামনে দাঁড়িয়ে গিটারে সুর তুলে বন্ধুরা গেয়ে গেছে ‌’যতদূরেই থাকো রবে আমারই, হারিয়ে যেও না কখনো তুমি’।

বৃহস্পতিবার (১২ মার্চ) সকালে হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে মৃত্যু হয় খাগড়াছড়ির প্রতিভাবান তরুণ কন্ঠশিল্পী চাইথোইপ্রু মারমার (৩২)। তিনি স্থানীয় ব্যান্ড দল চেঙ্গীর নিয়মিত ভোকাল। একইসঙ্গে খাগড়াছড়ির ভাইবোনছড়া কলেজের প্রভাষক। তার এমন অকাল মৃত্যু মেনে নিতে পারছে না কেউ। মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়লে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ সবখানে।

বন্ধু সূত্রে জানা যায় সকালে মৃত্যুর তীব্র আলিঙ্গনের সময়ও চাইথোইপ্রু চিৎকার করে গেয়ে গেছে ‘বসে আছি একা কাঁচা রোদ বিকেলে উদাস, বৃষ্টি শেষে রুপালী আকাশ’। তার পরক্ষণে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ে তিনি।

শুক্রবার (১৩ মার্চ) দুপুরে নিজ ঘর থেকে বের হয় তার অন্তিম যাত্রা। এতে অংশ নেয়, পরিবার, আত্মীয় স্বজন, সামাজিক ব্যক্তিত্ব, সহকর্মী, বন্ধুসহ বিভিন্ন শ্রেনীর শত শত মানুষ। ঘর থেকে শশ্মানের এই যাত্রায় বন্ধুরা সামনে থেকে গিটারে তোলে করুন সুর। দুই সারিতে আটটি গিটার অবিরত বেজে গেছে। বেজেছে বাঁশি। ধর্মীয় আনুষ্ঠানিকতা শেষে বটতলী শশ্মানে দাহ করা হয় তাকে।

চাইথোইপ্রু মারমার কন্ঠে আর মঞ্চ মাতাবে না। হাতে নেবে না গিটার। বন্ধুদের আড্ডা থেকে যাবে ফিকে। তিলে তিলে মানুষ করা মা-বাবার কোল অকালে খালি হয়ে গেলে। তিন ভাইবোনের সংসারে বড় চাইথোইপ্রু মারমাকে ঘিরে সব স্বপ্ন হারিয়েছে অতলে। মানতে না পারা এমন মৃত্যু হলেও জীবন থেমেছে এখানে।