গোলাপগঞ্জে ‘সাংবাদিক’ পরিচয়ে যুবকের যত কাণ্ড

প্রকাশিত: ৯:৩১ পূর্বাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ৩, ২০২২, 77 জন দেখেছেন

লাল সবুজ৭১ ডেস্ক : কয়েক বছর আগের ঘটনা। এলাকায় প্রায় ১০ বছর আগে বিদ্যুত সংযোগের উদ্বোধন করেছিলেন সাবেক শিক্ষামন্ত্রী ও স্থানীয় সংসদ সদস্য নুরুল ইসলাম নাহিদ। কিন্তু তা দুই ভাইয়ের মনঃপুত হয়নি। দশ বছর পর তারা ২/৩টি মিটারে বিদ্যুৎ সংযোগ স্থাপনের পর নিজেরাই আবার নতুন করে পুরো গ্রামে বিদ্যুৎ সংযোগের উদ্বোধন করে গোটা এলাকায় হাসির পাত্র হয়েছিলেন।

এই দুই ভাইয়ের একজন এখন অনেক পত্রিকার ‘সাংবাদিক’ বলে নিজেকে পরিচয় দিয়ে গ্রামে প্রভাব বিস্তার করছেন। সিলেট প্রতিদিনের সাথে আলাপকালে তিনি এক নিঃশ্বাসে অন্তত ১৫/১৬টি অনলাইন পত্রিকার নাম উল্লেখ করলেও এই প্রতিবেদক কোনটারই নাম আগে শুনেছেন বলে মনে হয়নি।

এই সাংবাদিকের নাম রাসেল আহমদ। তিনি গোলাপগঞ্জ উপজেলার উত্তর আলমপুর গ্রামের ইসলাম উদ্দিনের ছেলে। আর তার বড় ভাইয়ের নাম রাশেদ আহমদ তারেক (২২)।

জানা গেছে, টাকা আছে তাই বিভিন্ন নাম সর্বস্ব অনলাইন পত্রিকার স্টাফ রিপোর্টার বা অন্য কোন বড় পদের আইডি কার্ড সংগ্রহ করে তিনি বিভিন্ন স্থানে বিতরণ করেন এবং এই পরিচয় ব্যবহার করে প্রভাব বিস্তারেরও চেষ্টা করেন বলে অভিযোগ অনেকের।

এ ব্যাপারে মূলধারার সাংবাদিকতার সাথে জড়িত গোলাপগঞ্জের একাধিক সাংবাদিকের সাথে আলাপ হয়। তারা জানান, রাসেল প্রায়ই নিজেকে সাংবাদিক দাবি করে তার কার্ড- ইত্যাদি প্রদর্শন করেন বটে, তবে যেসব পত্রিকার নাম উল্লেখ করেন, সেগুলো তাদের কারো কাছেই পরিচিত নয়।

এলাকাবাসীর সঙ্গে নানা ঔদ্যত্যপূর্ণ আচরণের পাশাপাশি রাসেল ও তার ভাই তারেক তাদের আপন চাচা মাহতাব আলীর ক্রয়কৃত জমি দখল করতে উঠেপড়ে লেগেছে বলে অভিযোগ করেছেন তিনি। এমনকি সেই জমিতে গত ৪ আগস্ট তারা জোরপূর্বক ট্রাক্টর দিয়ে চাষবাসও শুরু করেন। মাহতাব আলী বাধা দিতে গেলে ভাড়াটে কয়েকজন সন্ত্রাসী নিয়ে তারা তার উপর হামলার চেষ্টা করেছে বলে তিনি গোলাপগঞ্জ থানায় দায়েরকৃত একটি জিডিতে উল্লেখ করেন ( নং ১৫৯২)।

বিষয়টি নিয়ে আলাপকালে মাহতাব আলী সিলেট প্রতিদিনকে জানান, ইসলাম উদ্দিন আমার ছোটো ভাই। একসাথে বিদেশে ছিলাম। সেখান থেকে একত্রে আমরা ৪ কেদার জমি কিনি। দুই কেদার আমার নামে আর দুই কেদার ইসলাম উদ্দিনের নামে। কয়েক বছর আগে আলাপ-আলোচনার ভিত্তিতে জমি আলাদা করে ইসলাম উদ্দিন তার দুই কেদার বিক্রি করে দেন। কিন্তু এখন তার দুই ছেলে মিলে আমার অংশটুকু দখল করে নিতে মরিয়া হয়ে উঠেছে। শুধু তাই নয়, তারা মোবাইলে আমাকে এবং আমার যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী ছেলেকেও নানাভাবে হুমকি দিয়েই যাচ্ছে।

তিনি আরও বলেন, আমি জিডি দায়েরের পর আমার ছেলেদের বিরুদ্ধে ভাতিজা রাশেদ আহমদ তারেকও মিথ্যা অভিযোগে আরেকটি জিডি দায়ের করেছে। তার অভিযোগের কোন ভিত্তি নেই। সব বানোয়াট।

জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধ প্রসঙ্গে রাসেল বলেন, ৪ আগস্ট চাচার নয়, তার নিজের জমি চাষ করেছেন তিনি। আর এক সঙ্গে এত এত পত্রিকায় কাজ করেন কিভাবে? সময় দেন কিভাবে- জানতে চাইলে তিনি বলেন, কোন কোনটায় মাসে একটা দু’টো করি। কয়েকটা ছেড়েও দিয়েছি।

তিনি বলেন, আপনারাতো জিডি নিয়ে নিউজ করেছেন, আমার বলার কিছু নেই। কিন্তু আমি নতুন হলেওতো একজন রিপোর্টার। আর কোন রিপোর্ট করলে বিষয়টি খেয়াল রাখবেন।

উল্লেখ্য, স্থানীয় একাধিক সূত্রে জানা গেছে, উদ্বোধনের প্রায় ১০ বছর পর তিনটি মিটারে বিদ্যুৎ সংযোগ দিয়ে আবারও পুরো গ্রামে বিদুৎ সংযোগের উদ্বোধনের ঘটনাসহ তাদের দুই ভাইয়ের নানা অপকর্মের প্রতিবাদ করায় এর আগে এই গ্রামের জাকির হোসেনকেও ( বর্তমানে মধ্যপ্রাচ্য প্রবাসী) তারা বারবার প্রাণনাশের হুমকি দিয়েছেন। কয়েক বছর আগে আসামী ধরতে গিয়ে এই গ্রামে পুলিশের উপর হামলার ঘটনা ঘটেছিল। সেই ঘটনাটিও ঘটিয়েছিলেন রাশেদ আহমদ তারেক, তার ভাই রাসেল এবং তাদের অন্যান্য কয়েকজন বখাটে সহযোগী। পরে বিষয়টি আপোষে মিমাংসা করেছিলেন স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও সচেতন মহল।

 

সূত্র : সিলেট প্রতিদিন