ভোট না দেওয়ায় টিউবওয়েল তুলে নিলেন নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান

প্রকাশিত: ১২:৫৪ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ৬, ২০২১, 253 জন দেখেছেন

লাল সবুজ৭১ ডেস্ক : নীলফামারী জেলার জলঢাকায় ভোট না দেওয়ার অপরাধে গুচ্ছগ্রাম থেকে অনুদানের টিউবওয়েল তুলে নিয়ে গেছেন নৌকা প্রতীকের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলাম মুকুল।

গত রোববার (৬ ডিসেম্বর) দুপুরে ইউনিয়ন পরিষদে নিয়োজিত চৌকিদারদের পাঠিয়ে এই ঘটনা ঘটান। উপজেলার ডাউয়াবাড়ী ইউনিয়নের নেকবক্ত বাজার-সংলগ্ন গুচ্ছগ্রামের দবির উদ্দিনের বাড়িতে এই টিউবওয়েল বসানো ছিল।

সরেজমিনে জানা গেছে, সদ্য নির্বাচিত চেয়ারম্যান মুকুলের সুপারিশে প্রায় ৮ মাস আগে ওই অনুদানের টিউবওয়েলটি উপজেলা থেকে পেয়েছিলেন গুচ্ছগ্রামের মৃত আইন উদ্দিনের ছেলে দবির উদ্দিন। গত ২৮ নভেম্বর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে মুকুলকে ভোট না দিয়ে প্রতিপক্ষ লাঙ্গল প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী রোকনুজ্জামান খোকনের পক্ষে নির্বাচন করার অপরাধে গ্রাম পুলিশদের দিয়ে এই কাজ করান তিনি।

দবির উদ্দিন সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, আমি দীর্ঘকাল ধরে মুকুল চেয়ারম্যানের সমর্থক ছিলাম। তার গত নির্বাচনগুলোয় আমার ভূমিকা ছিল। আমার বাড়িতে টিউবওয়েল না থাকায় তার সুপারিশে পানি খাওয়ার জন্য একটি টিউবওয়েল পেয়েছিলাম উপজেলা থেকে।

তিনি আরও বলেন, গেল নির্বাচনের আগে তার আচরণগুলো ভালো ছিল না। সে জন্য আমি তার প্রতিপক্ষ রোকনুজ্জামান খোকনের লাঙ্গল মার্কায় ভোট করি আর সেই অপরাধে আজ উনি আমার বাড়িতে তিনজন গ্রাম পুলিশ পাঠিয়ে টিউবওয়েলটি তুলে নিয়ে যান। টিউবওয়েলটি নিয়ে যাওয়ায় পরিবারের পাঁচ সদস্যকে নিয়ে এখন বিপাকে আছি।

গ্রাম পুলিশ রশিদুল ইসলাম বলেন, চেয়ারম্যান আমাকে টিউবওয়েলটি নিয়ে আসতে বলেছেন। তাই আমরা দবিরের বাড়ি থেকে টিউবওয়েল নিয়ে এসেছি।

এ বিষয়ে সাইফুল ইসলাম মুকুল সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, আমার ব্যক্তিগত ফান্ড থেকে এ টিউবওয়েল দিয়েছি। আমার ইচ্ছায় আবার নিয়ে এসেছি।

জলঢাকা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মাহবুব হাসান সংবাদমাধ্যমকে বলেন, শুনেছি। তবে অভিযোগ পাইনি এখনও। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।