চান্দিনায় ইউপি নির্বাচনে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী হেলাল

প্রকাশিত: ৬:১৩ পূর্বাহ্ণ, অক্টোবর ৮, ২০২১, 530 জন দেখেছেন

জেলা প্রতিনিধি, কুমিল্লা : কুমিল্লার চান্দিনায় জমতে শুরু করেছে ইউপি নির্বাচন। ইতিমধ্যে বিভিন্ন ফেসবুক স্ট্যাটাস, অনলাইন, প্রিন্ট মিডিয়ায় নির্বাচন নিয়ে সংবাদ প্রকাশিত হচ্ছে বেশ। উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের সরকারদলীয় প্রার্থীর সংখ্যা অন্যান্য বারের চাইতে বেশি দেখা যাচ্ছে।

আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চান্দিনা উপজেলার ১১ নং দোল্লাই নোয়াবপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামীলীগ দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী ইউনিয়ন আওয়ামিলীগের সহ সাধারণ সম্পাদক মো. হেলাল উদ্দিন। তিনি দোল্লাই নোয়াবপুর ইউনিয়ন বাসীর কাছে দোয়া ও সমর্থন প্রত্যাশী।

এ উপলক্ষে বৃহস্পতিবার ৭ (অক্টোবর) সন্ধ্যায় নৌকার মনোনয়ন প্রত্যাশী হেলালউদ্দিন নোয়াবপুর ইউপির বিভিন্ন ওয়ার্ডের জনসাধারণকে নিয়ে এক মতবিনিময় সভা করেন।

সভায় সাবেক ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক আয়েত আলীর সভাপতিত্বে ও ছাত্রনেতা মাসুদ রানার সঞ্চালনায় উপস্থিত ছিলেন বীরমুক্তিযোদ্ধা মিজানুর রহমান, ফয়েজুল্লাহ, আবুল খায়ের, রহমান মেম্বার, তাজুল ইসলাম, অধ্যাপক ডা. মোঃ গিয়াসউদ্দিন , সোহরাব হোসেন, নাসির উল্ল্যাহ, কাওসার মেম্বার, জয়নাল আবেদীন, কামাল হোসেন, নাসির উল্লাহ, টিপু সুলতান সহ আরোও নেতৃবৃন্দ।

বক্তারা বলেন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ সাধারণ সম্পাদক হেলাল উদ্দিন রাজনীতির সফল এক নেতৃত্বের নাম।

তার এই রাজনৈতিক জীবনে এসেছে নানান প্রতিকূলতা, হামলা, মামলা, নির্যাতনের শিকার । সকল প্রতিকূলতা পেরিয়ে বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বুকে ধারণ করে এবং জনগণের ভালোবাসায় শিক্ত হয়ে সফল প্রধানমন্ত্রীর শেখ হাসিনার সফল নেতৃত্বের প্রতি আস্থা রেখে তার সাংগঠনিক দ্বায়িত্ব পালন করে চলেছেন।এমন মানুষকে চেয়ারম্যান হিসেবে পাওয়া সৌভাগ্যের বিষয়। যার ভেতরে দুঃখ আছে সে জনগনের দুঃখ বুঝবে। সে নৌকা প্রতীক নিয়ে আসতে পারলে সকলে তার পক্ষে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ কারার কথা ব্যক্ত করেন।

আসন্ন ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী দলের ত্যাগী নেতা হেলাল বলেন – তার জন্ম আওয়ামীলীগ পরিবারে। তিনি মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উদ্বুদ্ধ হয়ে তরুন প্রজন্মকে সু-সংগঠিত করে নোয়াবপুর ইউপি’তে নৌকা প্রতীকের বিজয় সুনিশ্চিত করতে আওয়ামীলীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের সাথে নিয়ে নোয়াবপুর ইউপি নির্বাচনী এলাকায় দ্বারে দ্বারে গিয়ে বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়ন বার্তা পৌছে দেওয়ার জন্য ও চান্দিনা আসনের সাংসদ অধ্যাপক ডা. প্রাণ গোপাল দত্ত এমপির হাতকে শক্তিশালী করার জন্য এলাকায় সার্বক্ষানিক দলের হয়ে কাজ করছেন।

তিনি বলেন আমার রক্তের সাথে জড়িয়ে আছে আওয়ামী লীগের রাজনীতি। তিনি ১৯৯৪ সালে দোল্লাই নোয়াবপুর সরকারি কলেজের ছাত্রলীগের সভাপতি, ১৯৯৬ সালে শেখ হাসিনা সরকারগ গঠন, ২০০১ সালের ১৩ টি রাজৈনিতিক উদ্দেশে বিভিন্ন হামলা মামলার স্বীকার হন এই ত্যাগী নেতা। বর্তমানে তিনি ইউনিয়ন আওয়ামি লীগের সহ সাধারন সম্পাদক পদে দায়িত্ব পালন করে আসছেন। আগামী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে দোল্লাই নোয়াবপুর ইউনিয়ন বাসীর সেবা করতে আওয়ামীলীগের দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী। মনোনয়ন নিয়ে ইউনিয়ন বাসীর সেবা করা সহ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়তে কাজ করার ব্যক্ত করেন।
ছোটবেলা থেকে রাজনীতি সচেতন সাবেক এই ছাত্র নেতা ও বর্তমান আওয়ামীলীগ নেতা তার নিজ এলাকার মানুষের দাবির মুখে অবশেষে নোয়াবপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নিজের সম্মতির কথা ব্যক্ত করেছেন এবং নির্বাচনী প্রচারণা চালাচ্ছেন।
সভাপতি বলেন-যে কেহ মনোনয়ন চাইতে পারে এটাই গণতন্ত্র। তবে স্বচ্ছ, গ্রহনযোগ্য,দুর্নীতিমুক্ত ব্যক্তিকে চেয়ারম্যান হিসেবে দেখতে চায় জনগন।
দুঃসময়ের কান্ডারী হেলালের এই রাজনৈতিক জীবনে এসেছে নানান প্রতিকূলতা, হামলা, মামলা, নির্যাতনের শিকার । সকল প্রতিকূলতা পেরিয়ে বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বুকে ধারণ করে এবং জনগণের ভালোবাসায় শিক্ত হয়ে সফল প্রধানমন্ত্রীর শেখ হাসিনার সফল নেতৃত্বের প্রতি আস্থা রেখে তার সাংগঠনিক দ্বায়িত্ব পালন করে চলেছেন। হেলাল উদ্দিন রাজনীতির সফল এক নেতৃত্বের নাম।
এত ত্যাগ, বঞ্চিত, অবহেলিত থাকার পরেও রাজনীতিতে তার কখনো এক মুহূর্তের জন্যও ভাটা পড়েনি। দোল্লাই নোয়াবপুর রাজনীতির অন্তিম মুহূর্তে তার শ্রম অনস্বীকার্য। উক্ত ইউনিয়নের সুরিখোলা গ্রামের বাসিন্দা, এক সমাজসেবী, সম্ভ্রান্ত পরিবারের সন্তান তিনি । এলাকায় তিনি একজন সৎ, ভদ্র, পরোপকারী, এবং দলের বেলায় এক ত্যাগী, বঞ্চিত নেতা হিসেবে পরিচিত। দীর্ঘ রাজনৈতিক জীবনে তিনি জননিরাপত্তা, মামলাসহ অসংখ্য দলীয় মামলার আসামি হন।

এলাকাবাসী জানান আওয়ামী নেতা হেলাল উদ্দিন ছোটবেলা থেকে নেতৃত্ব দিয়ে আসেছেন অনেক সংগঠনে। এছাড়াও করোনা কালীনসময়ে পাশে দাড়িয়েছেন এলাকা সহ আশপাশের বিভিন্ন এলাকার হত-দরিদ্র মানুষের পাশ।

উল্লেখ্য যে,ছোটবেলা থেকে রাজনীতি সচেতন এই নেতা তার নিজ এলাকার মানুষের দাবির মুখে অবশেষে নোয়াবপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নিজের সম্মতির কথা ব্যক্ত করেছেন এবং নির্বাচনী প্রচারণা চালাচ্ছেন।দলমত নির্বেশেষ সাধারন ভোটারদের মাঝে আলোচনার শীর্ষে থাকা নৌকা মার্কা প্রত্যাশী এই নেতা কতটুকু দিতে পারবেন সেটাই বলছে আপামর জনগন।