বাংলাদেশ আওয়ামী তথ্য-প্রযুক্তি ফোরামের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হলেন মামুন চৌধুরী

প্রকাশিত: ৬:৫০ অপরাহ্ণ, মার্চ ৭, ২০২১, 587 জন দেখেছেন

মোঃ মাইন উদ্দিন চৌধুরী, মতলব (চাঁদপুর) প্রতিনিধিঃ

২৫ই ফেব্রুয়ারী ২০২১, বৃহস্প্রতিবার প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি কাজী নেয়ামুল বশির বিদেশ সফরের পরিপ্রেক্ষিতে মোঃ সারোয়ার মামুন চৌধুরী কে ভারপ্রাপ্ত সভাপতির দায়িত্ব প্রদান করেন।

এক প্রতিক্রিয়া তিনি বলেন, আমাকে বাংলাদেশ আওয়ামী তথ্য-প্রযুক্তি ফোরামের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি নির্বাচিত করায় ফোরামের কেন্দ্রীয় কমিটির সকল নের্তৃবৃন্দের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করি।

তিনি আরও বলেন, আমার উপরে যে অর্পিত দায়িত্ব দেয়া হয়েছে আমি নিজের সততা, নিষ্ঠা, মেধা এবং দক্ষতা দিয়ে যথাযথ ভাবে আমি আমার দায়িত্ব পালন করব। এজন্য তিনি সকলের নিকট দোয়া ও সহযোগিতা চেয়েছেন।

তিনি বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক উপ-কমিটির সদস্য, বাংলাদেশ আওয়ামী তথ্য-প্রযুক্তি ফোরামের প্রেসিডিয়াম সদস্য, জয়েন্ট কনভেনার অব ঢাকা চেম্বার অব কমার্স- ইন্ড্রাস্ট্রিয়াল ও কমার্শিয়াল ট্রেড পলিসি, মেম্বার অব ঢাকা চেম্বার অব কমার্স- কাস্টমস্, ভ্যাট ও ট্যাক্স রিলেটেড বিষয়, কনভেনার অব পায়রা শিপিং এসোশিয়েশন, মেম্বার অব ঢাকা ট্যাক্সেস বার এসোশিয়েশন, মেম্বার অব ভ্যাট প্রফেশনাল ফোরাম, জেনারেল সেক্রেটারী অব ম্যাট ফোরাম- ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, মেম্বার অব ঢাকা-চট্টগ্রাম সিএন্ডএফ এসোশিয়েশন, মেম্বার অব লায়নস্ ক্লাবস্ ইন্টারন্যাশনাল ও স্বত্ত্বাধিকারী অব জয়িতা ট্রেড কর্পোরেশন।

উল্লেখ্য মোঃ সারোয়ার মামুন চৌধুরী চাঁদপুর জেলার মতলব উত্তর উপজেলার ১ নং ষাটনল ইউনিয়নের কালীপুর চৌধুরী বাড়ির ভাষা সৈনিক ও বীর মুক্তিযোদ্ধা মরহুম কমরউদ্দিন চৌধুরীর ছেলে। মোঃ সারোয়ার মামুন চৌধুরী প্রতিশ্রুতিশীল বঙ্গবন্ধুর এক অকুতোভয় আদর্শের সৈনিক। জননেত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনা পালনে প্রস্তুত। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় পড়াকালীন সময়ে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের রাজনীতিতে সম্পৃক্ত, মুজিব আদর্শের অনেকের স্নেহের ছোটভাই তার মতিঝিলের ব্যবসায়িক অফিস অনেক সময় অনেক নেতা কর্মী সমার্থক আন্দোলনের কাজে ব্যবহার করেছে, হাসিমুখে সকলকে আপ্যায়নের চেষ্টা করছে। বর্তমানে তিনি বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় কার্যকরী কমিটির তথ্যও গবেষনা বিষয়ক নব নির্বাচিত উপকমিটির সদস্য। প্রতিশ্রুতিশীল এই মুজিব আদর্শের সৈনিক হিসাবে আত্ম মানবতার সেবায় সব সময় নিজকে নিয়োজিত রাখে। যেখানে আজ অনেকে অন্যায়ভাবে অর্থোপার্জনে মহাব্যস্ত তখন সারোয়ার মামুন ১৫/১৬ ঘন্টা রাজনীতির পাশাপাশি কাজ নিয়ে ব্যস্ত। সারোয়ার মামুন ৯০ এর গণআন্দোলন অংশগ্রহণ করে ৯৬ এর স্বৈরাচারীনি খালেদা বিরোধী আন্দোলনের সৈনিক। ওয়ান ইলেভেনের বিরোধী আন্দোলনের সৈনিক। ২১ গ্রেনেড হামলার সময় সভাস্থলে উপস্থিত থেকে হাসপাতালে রোগী নিয়ে গিয়ে সহযোগিতা করার চেষ্টা করেছে। এখনো অনেক গরিব অসহয় ছাত্রলীগ আওয়ামীলীগের কর্মীদের সহযোগিতা করতে কার্পণ্য করতে দেখি না। তিনি যেমন চাঁদপুর জেলার মতলবের অহংকার তেমনি বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাবেক সদস্য হিসাবে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের অহংকার।