নবীনগরে বিদুৎ পৃষ্ঠে চাচা ভাতিজার মৃত্যু!

প্রকাশিত: ৩:৩১ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ২২, ২০২১, 516 জন দেখেছেন

নবীনগর(ব্রাহ্মনবাড়ীয়া) প্রতিনিধিঃ

ব্রাহ্মণবাড়িয়া নবীনগর উপজেলার বড়িকান্দি ইউনিয়নের বড়িকান্দি পশ্চিম পাড়া কাচারী সংলগ্ন মৃত আবদুল বারেক মিয়ার ছেলে মোস্তফা মিয়া (৭০) মৃত সাইজ উদ্দিন মিয়ার ছেলে জসু মিয়া (৬৫) ২০/০১/ বুধবার আনুমানিক ভোর চার(৪)ঘটিকা সময় বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে আগুন লেগে দুজনের মৃত্যু হয় বলে জানা যায়!

সরজমিনে গিয়ে জানা যায় বুধবার ভোর রাত আনুমানিক ৪ ঘটিকায় মোস্তফা মিয়ার ছেলে মোঃ মানিক মিয়ার বসতঘরে বিদ্যুতের মিটার বার্স্ট হয়ে সারা ঘরে আগুনে ছড়িয়ে পড়ে! বাড়ির মালিক ও আশপাশের লোকজনের চিৎকারে পাড়া-প্রতিবেশী সবাই জড়ো হয় তাৎক্ষণিক সকলে আগুন নেভানোর চেষ্টা করে সে সময় মোস্তফা মিয়া ঘর থেকে বাহির হয়ে ঘটনাস্থলে আসার সময় বিদ্যুতের তার মাটিতে পড়ে থাকায় তারের সাথে পৃষ্ঠ হয়ে অচেতন হয়ে পড়ে। তাৎক্ষণিক মোস্তফা মিয়ার স্ত্রী পাশের ঘরে থাকা ভাতিজা জসু মিয়া কে ডেকে আনেন, জসু মিয়া তার চাচা মোস্তফা মিয়াকে উদ্ধার করতে এসে সে নিজেও বৈদ্যুতিক তারের সাথে শট খেয়ে মাটিতে অচেতন হয়ে পড়ে!
স্থানীয় লোকদের সহযোগিতায় আগুন নিয়ন্ত্রণের পাশাপাশি তাদেরকে সলিমগঞ্জ অলিউর রহমান হসপিটালে নিয়ে যায় কর্তব্যরত ডাক্তার পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষে তাদেরকে মৃত ঘোষণা করেন।
দুজনের মর্মান্তিক মৃত্যুর খবর এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে তাৎক্ষণিক বড়িকান্দি ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান জনাব আনোয়ার পারভেজ (হারুত), সলিমগঞ্জ অস্থায়ী পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মোঃ মামুন, বড়িকান্দি ইউনিয়নের (৪) নং ইউপি সদস্য আজিজুল হক, মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার রহিস উদ্দিন সহ এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ নিহত পরিবারের পাশে গিয়ে সমবেদনা জানান।

বড়িকান্দি ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আনোয়ার পারভেজ (হারুত) সাংবাদিকদের মাধ্যমে বলেন বসতঘরটি সহ ঘরের মধ্যে থাকা প্রায় পাঁচ লক্ষ(৫,০০,০০০) টাকার মালামাল পুড়ে ছায় হয়ে যায়।
সেই নিরহ খেটেখাওয়া পরিবারটির যেই ক্ষয়-ক্ষতি হয়েছে তা কখনো পূরণ হবার নয়। সেই পরিবার দুটির কথা বিবেচনা করে উপজেলা প্রশাসন, পল্লী বিদ্যুতের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের প্রতি আকুল আবেদন করছি এই কৃষক অসহায় পরিবারের পাশে এসে যেন উনাদের সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেন।

উপজেলা নির্বাহি অফিসার জনাব একরামুল সিদ্দিক মহোদয়ের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করলে তিনি আশ্বস্ত করেন আমি দুর্ঘটনাস্থল পরিদর্শনে আসবো এবং আমার উপজেলা প্রশাসন ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারদের পাশে থাকবে।