সিসিডিএ’র এসইপি প্রকল্পের অবহিতকরণ সভা

প্রকাশিত: ১০:০৩ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২৬, ২০২০, 511 জন দেখেছেন

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

২৬ নভেম্বর বৃহস্পতিবার। সকাল ১০টায় বৃহত্তর কুমিল্লা জেলার দাউদকান্দি উপজেলায় অনুষ্ঠিত হলো সাসটেইনএবল এন্টারপ্রাইজ প্রকল্পের অবহিতকরণ সভা। ইলিয়টগঞ্জ দক্ষিণ ইউনিয়নের আদমপুরে সেন্টার ফর কমিউনিটি ডেভেলপমেন্ট এসিস্ট্যান্স (সিসিডিএ)’র কার্যালয়ে সিসিডিএ’র উপ-নির্বাহী পরিচালক মোঃ লুৎফর রহমান এর সভাপতিত্বে উক্ত সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা মৎস্য কর্মকর্তা শরীফ উদ্দিন। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন উপস্থিত ছিলেন রাষ্ট্রীয় পুরষ্কার প্রাপ্ত কৃষি পরিবেশ ও সমাজ উন্নয়ন সংগঠক মতিন সৈকত, দাউদকান্দি উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা সাবিনা ইয়াসমিন চৌধূরী। সভায় প্রকল্পের কর্মএলাকা, বাস্তবায়ন কৌশলসহ বিস্তারিত উপস্থিত সবাইকে অবগত করেন এসইপি প্রকল্প ব্যবস্থাপক মাসুদ আলম। উক্ত অবহিতকরন সভায় বক্তব্য রাখেন সিসিডিএ’র এরিয়া অফিসার আব্দুল জলিল, সিসিডিএ—সমৃদ্ধি প্রকল্পের সমন্বকারী মোঃ হাসান আলী, আদমপুর—২ শাখার ব্যবস্থাপক সাহিদা আক্তার, এসইইএম প্রকল্পের সমন্বয়কারী মোঃ শাহজাহান, সিসিডিএ—পেইস প্রকল্প সমন্বয়কারী আবু মুসা, হিসাব রক্ষক সুখলাল সমাদ্দার, এসইপি প্রকল্পের ডকুমেন্টেশন কর্মকর্তা নূরুন্নবী রাসেল, ফাইন্যান্স ও প্রকিউরমেন্ট কর্মকর্তা মোঃ নাজমুল হোসেন তুহিন, মৎস্য কর্মকর্তা কৃষিবিদ মোঃ লেমন মিয়া ও পরিবেশ কর্মকর্তা হাসিব ইকবাল কানন। তিতাস উপজেলা মাঠ মৎস্য কর্মকর্তা মোঃ মোজাম্মেল হক এবং চান্দিনা উপজেলা মাঠ মৎস্য কর্মকর্তা মনির উদ্দিনএছাড়া স্থানীয় মৎস্যচাষী প্রতিনিধিসহ সমাজের গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিগণ।

পিকেএসএফ এর অর্থায়নে সাসটেইনএবল এন্টারপ্রাইজ প্রকল্পের ‘কুমিল্লা জেলায় প্লাবণভূমি অঞ্চলের টেকসই মৎস্যচাষ কেন্দ্রিক উদ্যোক্তা উন্নয়ন’ বিষয়ক উপপ্রকল্প বাস্তবায়ন করছে সেন্টার ফর কমিউনিটি ডেভেলপমেন্ট এসিসটেন্স (সিসিডিএ)। এই পর্যায়ে বৃহত্তর কুমিল্লা জেলার দাউদকান্দি, তিতাস, চান্দিনা ও মুরাদনগর এই ৪ উপজেলার মোট ১০ টি শাখার প্রায় ২০৫০ জন প্লাবনভূমি ও পুকুরভিত্তিক মৎস্যচাষি ও উদ্যোক্তা এই প্রকল্পের সুবিধাভোগি হবেন। প্রকল্পের সহজ শর্তে অর্থঋণ সহায়তার পাশাপাশি এর আওতায় মৎস্যচাষীদের পরিবেশ সুরক্ষিত রেখে মাছ চাষ কার্যক্রম পরিচালনার জন্য উৎসাহিত করা ও নানা রকম কারিগরি সহায়তা প্রদান করা হবে। এসইপি প্রকল্পের নিজস্ব মৎস্য কর্মকর্তা ও পরিবেশ কর্মকর্তা রয়েছেন যারা চাষিদের সার্বক্ষণিক পরামর্শ ও সহায়তা প্রদান করবেন। প্রকল্পের আওতায় মৎস্যচাষিদের দক্ষতা উন্নয়নে প্রতিবছর উন্নত ও লাগসই প্রযুক্তিতে মাছচাষ, পরিবেশ সুরক্ষা বিষয়ে বেশকিছু প্রশিক্ষণ রয়েছে, যেখানে চাষিদের উন্নত চাষ কৌশলের সাথে পরিচয় করানো হবে। মৎস্যচাষীদের চাষের সক্ষমতা বৃদ্ধির জন্য উন্নত জাতের মাছের পোনা উৎপাদনের লক্ষে কর্মএলাকায় কার্প হ্যাচারী ও ফিডমিল স্থাপন করার পরিকল্পনা রয়েছে। ‘এই প্রকল্পের আওতায় কর্মএলাকায় ইকো—ট্যুরিজম পার্ক নির্মাণ করা হবে, যা পরিবেশকে সুরক্ষিত রেখে মানুষের বিনোদন এর চাহিদা পূরণ করবে’।