কুমিল্লার তিতাসে হিজড়াদের অত্যাচারে অতিষ্ঠ গ্রামীণ জীবন

প্রকাশিত: ৮:০৬ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২৫, ২০২০, 630 জন দেখেছেন

আলিফ মাহমুদ কায়সার,কুমিল্লা প্রতিনিধিঃ

নকল হিজড়া,চাঁদাবাজ, মাদক ব্যবসায়ীসহ বিভিন্ন অপরাধের সমন্বয়ে গড়ে উঠা হিজড়া গ্রুপের অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে গ্রামীণ জীবন। সর্বত্র দাপিয়ে বেড়াচ্ছে হিজড়া বাহিনী। বিভিন্ন দল ও সংগঠনে বিভক্ত হয়ে গাড়ি হতে শুরু করে সর্বত্র চাঁদাবাজিতে মেতে উঠেছে তারা। অশ্রাব্য গালাগাল, নগ্ননৃত্য প্রদর্শন, ভাংচুর, মারধর করাসহ নানারকম বেলেল্লাপনায় মেতে উঠেছে তারা।
বিভিন্ন ধর্মীয় ও সামাজিক অনুষ্ঠান, নববর্ষ, বিয়ে,খতনা,বাচ্চা জন্মগ্রহণ ছাড়া ও নানা অযুহাতে গুনতে হয় বড় অংকের বিশাল চাদা।
সারাদেশের ন্যায় তিতাসে ও হিজরাদের দৌরাত্ম্য আর চাঁদাবাজি অতিমাত্রায় বেড়ে গেছে। হুট করে হিজরাদের আক্রমণ ও নানা দাবির মুখে এভাবেই ভয়াবহ রকমের বিব্রত হচ্ছেন অসংখ্য মানুষ।

সবশেষে,গত কয়েকদিন আগে উপজেলার চররাজাপুর দরিদ্র পরিবারের মেয়েকে প্রতিবেশি ও আত্নীয়দের অর্থ সহায়তায় বিয়ের আয়োজন করা হয়। সেখানে উপস্থিত হয় উপজেলা থেকে ৬/৭জনের একটি হিজড়া দল। এতে দশ হাজার টাকা দাবি করে তারা।
গরীব পরিবারটি ২/৩হাজার টাকা দিতে চাইলে আগত মেহমানদের প্যান্ডেলে উলঙ্গ হয়ে খারাপ ভাষায় গাল মন্দ শুরু করে হিজড়া বাহিনী । প্রতিবেশীরা এসে বিষয়টি নিয়ে মন্তব্য করলে হিজড়ারা ক্ষিপ্ত হয়ে এক গৃহবধূকে চেয়ার ও টেবিলের কাঠ দিয়ে মারতে শুরু করে এবং ঐ গৃহবধূর হাতের কব্জির হাড় ভেঙ্গে দেয়। মহিলার চিৎকারে উপস্থিত লোকজনের মধ্যে গৃহবধূকে বাঁচাতে মো. দেলোয়ার হোসেন এগিয়ে এলে তাকেও পিটিয়ে মাথা ফাটিয়ে দেওয়া হয়।
এদিকে আহতদের গৌরীপুর হাসপাতালে ভর্তি করিয়ে চিকিৎসার ব্যবস্থা করেন স্থানীয় মেম্বার মো. মমিনুল ইসলাম।
আর ঘটনা ভিন্নখাতে নিতে উল্টো হিজড়াদের সিনিয়র এক নেতার নেতৃত্বে তিতাস থানায় অভিযোগ করা হয়। পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শণ করেছেন বলে জানায় গ্রামবাসী।

হিজড়াদের এমন ভয়াবহ দৌরাত্ম থামাতে প্রশাসনসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ অতিদ্রুত কোন কার্যকরি ব্যবস্থা নেবেন,এমনটাই প্রত্যাশা ভুক্তভোগীদের।