নারী কেলেঙ্কারি মামলায় জেল হাজতে আওয়ামী লীগ নেতার লম্পট ভাতিজা

প্রকাশিত: ৯:১৬ পূর্বাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১৫, ২০২০, 553 জন দেখেছেন

নবীনগর (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধিঃ

ব্রাহ্মণবাড়িয়া নবীনগরে রছুল্লাবাদ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক লহরী গ্রামের সাজু মিয়া তার আপন বড় ভাই মারা যাওয়ার পর তাদের সন্তানদের ভবিষ্যৎ এর কথা চিন্তা করে ভাবীকে বিয়ে করেন,সেই ভাইয়ের সন্তান মোঃ জসিমউদদীন( ২৮) তারই আপন মামাতো ভাইয়ের বউ ২ সন্তানের জননীর সাথে দীর্ঘদিন ধরে কেলেংকারীতে লিপ্ত থাকার পর অবশেষে প্রথম স্ত্রীর অনুমতি ছাড়াই কোর্টে ১০ লাখ টাকা দেনমোহর ধার্য্য করে ১৬/০৩/২০২০ ইং তারিখে বিয়ে করেন কিন্তু দলীয় প্রভাব খাটিয়ে যৌতুকের দাবিতে তাকে অস্বীকার করায় আয়েশা আক্তার বাদী হয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্যাট আদালতে ১২/০৮/২০২০ ইং তারিখে যৌতুক নিরোধক আইনে একটি সি/ আর মামলা দায়ের করেন।
উক্ত মামলায় বিজ্ঞ আদালত আসামি জসিম কে ১৩/০৯/২০ ইং তারিখে হাজির হওয়ার নির্দেশনা প্রদান করে সমন জারি করলে গত কাল সে আদালাতে হাজির হলে উভয় পক্ষের বিজ্ঞ আইনজীবীদের শুনানি শেষে আদালত তাকে জেল হাজতে প্রেরণ করার নির্দেশ প্রদান করেন।

বাদী পক্ষের আইনজীবী এডভোকেট দেলোয়ার হোসন দুলাল বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন,জসিম একজন প্রতারক প্রকৃতির লোক সে ১০ লাখ টাকা দেনমোহর ধার্য্য করে আয়েশাকে বিয়ে করেন এবং পরবর্তীতে আয়েশার কাছ থেকে ভূয়া কাগজকে কাবিননামা দেখিয়ে ১০ হাজার টাকা হাতিয়ে নেয় বিষয়টি সে আদালতে স্বীকারও করেছেন। বিজ্ঞ আদালত উভয় পক্ষের শুনানি শেষে আসামিকে জেল হাজতে প্রেরণের নির্দেশনা প্রদান করেন, বর্তমানে সে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা কারাগারে রয়েছেন।

আদালতের নির্দেশনা কে সাধুবাদ জানিয়ে মামলার বাদিনী আয়েশা আক্তারের পিতা বলেন,আমাদের আদালতের প্রতি আস্থা আছে আদালত যে নির্দেশনা দিবে আমরা তাতেই সন্তুষ্ট হব।