নওগাঁ-৬ উপ-নির্বাচনে “রেজু “কে নিয়ে স্বপ্ন বিএনপি নেতাকর্মী সহ জন সাধারনের

প্রকাশিত: ৫:০১ অপরাহ্ণ, আগস্ট ২১, ২০২০, 1025 জন দেখেছেন

নওগাঁ জেলা প্রতিনিধি-

উত্তরের সীমান্ত ঘেষা জনপদ নওগাঁ জেলার (আত্রাই-রাণীনগর) এই দুই উপজেলা নিয়ে গঠিত সংসদীয় আসন ৫১ নওগাঁ-৬ নির্বাচনী এলাকা। গত(২৭ জুলাই) এই সংসদীয় আসনের নির্বাচিত সাংসদের মৃত্যুর পর। শূন্য ঘোষনা করা হয় এই আসন। আর এই সংসদীয় আসনে উপ-নির্বাচনে শেখ মোঃ রেজাউল ইসলাম রেজু কে নিয়ে স্বপ্ন দেখছেন বিএনপি নেতাকর্মী সহ জনসাধারন।

শূন্য এই আসনে উপ-নির্বাচন কে কেন্দ্র করে দলীয় মনোনয়ন প্রত্যশীরা নিজ নিজ দলের প্রধান এবং এলাকাবাসীর দৃষ্টি আকর্ষন ও সমর্থন পেতে বিভিন্ন ভাবে চালিয়ে যাচ্ছেন গন সংযোগ সহ প্রচার প্রচারনা । নওগাঁ-৬ এই আসনে
বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপি র দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশীদের তালিকায় থাকা হাফ ডজন খানেক নেতার মধ্যে। অন্যতম একজন প্রার্থী হলেন। শেখ মোঃ রেজাউল ইসলাম রেজু।

জানাগেছে, দীর্ঘ প্রায় দেড় যুগের ও বেশী সময় ধরে নেতা হিসেবে রাজপথে আন্দোলন সংগ্রামে সামনের সাড়িতে থেকে নেতৃত্ব দিয়ে কর্মীদের পাশে সক্রিয় অবস্থানে থাকায়।এই সংসদীয় এলাকায় নেতা হিসেবে তার জনপ্রিয়তা আছে বেশ। এছাড়া এলাকায় বিগত সময় যে কোনো দুর্যোগ ও বর্তমানে চলমান করোনা মহামরী ও বন্যাকবলিত অসহায়দের পাশে দল বিএনপির পক্ষে নেতাকর্মীদের সাথে নিয়ে সহোযোগিতার হাত বাড়িয়ে পাশে দাঁড়ানো সহ বিভিন্ন ধর্মীয় এবং সামাজিক প্রতিষ্ঠানে নিজস্ব তহবিল হতে আর্থিক অনুদান ও সার্বিক সহোযোগিতা অব্যাহত থাকায়। এই এলাকায় অহিংস নেতা এবং মানবতার ফেরিওয়ালার খ্যাতি রয়েছে তার দখলেই। এ ছাড়াও দরিদ্র মেধাবী শিক্ষার্থীদের সহোযোগিতা চলমান আছে অনেক আআগে থেকেই। এই নেতার নিজস্ব তহবিল হতে ।করোনা কালীন লকডাউন পরিস্থিতি তে তার নিজস্ব নাহার গার্ডেন কমপ্লেক্সের ৪৬টি দোকান ঘরের আড়াই মাসের ভাড়া মওকুফ করেন তিনি
দলীয় কর্মসুচি বাস্তবায়নে দৃঢ় প্রতিজ্ঞ এবং নেতা কর্মীর কাছে জনপ্রিয় একজন ব্যাক্তিত্ব তিনি। এমনটিই জানাগেছে এই দুই উপজেলার বিভিন্ন পর্যায়ে নেতা কর্মীদের সাথে কথা বলে । রাজনৈতিক প্রতিহিংসার শিকার এই নেতার নামে। রাজনৈতিক মামলা ও আছে চলমান।
এবিষয়ে মনোনয়ন প্রত্যশী অহিংস নেতা ও মানবতার ফেরিওয়ালা খ্যাত” শেখ মোঃ রেজাউল ইসলাম রেজু” বলেন। আমার রাজনৈতিক জীবনের শুরু থেকেই জাতীয়তাবাদী দলের প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের। আদর্শে অনুপ্রাণিত হয়ে।দলের নেতা কর্মী সহ সাধারন মনুষের কল্যাণে নিজেকে আত্মনিয়গ করেছি। আমি দলের প্রতিটি নির্দেশনা নেতা কর্মীদের সাথে নিয়ে বাস্তবায়ন করেছি। ২০১৮ সালে অনুষ্ঠিত একাদশ সংসদ নির্বাচনে এই আসনে আমি দলের মনোনয়ন প্রত্যশী ছিলাম। দল অন্য জন কে ধানের শীষ প্রতীকে মনোনয়ন দিয়েছে।এই আসনের নেতাকর্মীরা বিভিন্ন কারনে দলের মনোনীত ব্যাক্তি কে সংবাদ সম্মেলনের মধ্যেদিয়ে অবাণঞ্চিত ঘোষনা করলে ও। দলের সিদ্ধান্তের প্রতি সম্মান জানিয়ে আমি নেতা কর্মীদের সাথে নিয়ে নির্বাচন কালীন সময় ধানের শীষ প্রতীকের প্রচার প্রচারনায় প্রার্থীর সাথে মাঠে কাজ করেছি। এলাকার জনগনের দুর্দিন দুঃসময়ে দেশ মাতা বেগম খালেদা জিয়া এবং ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান জনাব তারেক রহমানের নির্দেশনা মোতাবেক ত্রাণ ও নগদ অর্থ সহয়তা দিয়ে অসহায় কর্মহীন বিপদগ্রস্থদের পাশে দাঁড়িয়েছি । এই এলাকাদ্বয়ের তথা ( আত্রাই -রানীনগরের)মানুষের জীবনমান উন্নয়নে শহীদ জিয়াউর রহমানের স্বপ্নের বাস্তবায়নে আমি নিজেকে সর্বদা নিয়জিত রেখে এই আসন পুনুঃরুদ্ধার করে দলকে উপহার দিতে চাই। মনোনয়ন প্রশ্নে তিনি বলেন।দল যদি এই উপ-নির্বাচনে অংশগ্রহন করেন। এবং আমার দলীয় কর্মকান্ডের মূল্যায়ন করেন। তবে আমি শতভাগ আশাবদী নওগাঁ-৬ উপনির্বাচনে আমি এমপি পদে ধানের শীষ প্রতীকে মনোনীত হবো।
সেই সাথে তিনি দলীয় সিদ্ধান্ত কে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে।নেতাকর্মীদের একে অপরের প্রতি বিনয়ী ও ঐক্যবদ্ধ থাকার কথা ও বলেন। আত্রাই উপজেলা বিএনপির একযুগের বেশী সময় ধরে সভাপতির দ্বায়িত্ব পালন করা এই জনপ্রিয় নেতা।
নওগাঁ-৬ উপনির্বাচন বিষয়ে নওগাঁ জেলা বিএনপির আহ্বায়ক-মোঃ হাফিজুর রহমান(হাফিজ মাষ্টার) বলেন।এই আসনে বেশ কয়েকজন মনোনয়ন প্রত্যাশী আছেন। এখনো দলীয় ভাবে উপ-নির্বাচনে অংশ গ্রহনের কোন নির্দেশনা আসেনি। আর জনগন এ সরকারের অধীনে সুষ্ট নির্বাচন বিশ্বাস করেনা। তবুও দল যদি গণতন্ত্র পুনুঃরুদ্ধারের আন্দোলনের অংশ হিসেবে দল সিদ্ধান্ত নেয় নির্বাচনে অংশ গ্রহন করবে, এবং ক্ষমতাসীনদের শুভ বুদ্ধির উদয় হয়। অবাধ সুষ্ট নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয় তবে ধানের শীষ প্রতীক এই আসনে বিএনপি বিপুল ভোটে বিজয় লাভ করবে।প্রার্থী নির্ধারনের বিষয়ে তিনি বলেন গত একাদশ সংসদ নির্বাচন ২০১৮ তে( নওগাঁ-৬) এই আসনে অনেকেই মনোনয়ন পত্র সংগ্রহ এবং জমা প্রদান করেছেন। দল বিএনপি আলমগীর কবীর এবং শেখ মোঃ রেজাউল ইসলাম রেজু। এই দুই জনের নাম ঘোষনা করেন। পরে ধানের শীষ প্রতীকে ভোট করেন আলমগীর কবির। ভোট পরবর্তী সময় প্রায় দুবছর হলো তিনি এ জেলায় বা তার নির্বাচনী এলাকায় দলীয় কোন রকম কর্মসূচি বা কার্যক্রমে আজ পর্যন্ত অংশ গ্রহন করেনি । অপর দিকে শেখ রেজাউল ইসলাম রেজু বিষয়ে তিনি বলেন। শেখ মোঃ রেজাউল ইসলাম তিনি সক্রিয় একজন নেতা দির্ঘদিন তিনি আত্রাই উপজেলা বিএনপির সভাপতির দ্বায়িত্ব পালন করেছেন। বর্তমানে জেলা বিএনপি র আহ্বায়ক কমিটির সদস্য। আন্দোলন সংগ্রাম এবং দলীয় কর্মসূচিতে সরব উপস্থিতি এবং দুর্যোগময় প্রতিটি পরিস্থিতিতে (নওগাঁ-৬) তার এলাকায় অসহায়দের পাশে সহায়তা নিয়ে দলের পক্ষথেকে দাঁড়ান বলে সত্যতা নিশ্চিত করেন নওগাঁ জেলা বিএনপি’র আহ্বায়ক হাফিজুর রহমান।
তবে নেতাকর্মীদের প্রত্যাশা সাংগঠনিক ভাবে সঠিক পর্যোবেক্ষন করে আত্রাই রানীনগরের দলের নেতাকর্মী ও জনসাধারনের কল্যান সহ জীবনমান উন্নয়ন এবং বাস্তব কর্মে বিশ্বাসী ক্লিন ইমেজের ত্যাগী জনপ্রিয় ব্যাক্তিত্ব শেখ মোঃ রেজাউল ইসলাম রেজু কে নওগাঁ-৬ আসনে শান্তির দূত হিসেবে দল বিএনপি ধানের শীষ প্রতীকে মনোনীত করবে বলে আশায় বুক বেঁধেছেন এই আসনের দলীয় নেতা কর্মী সহ সকল শ্রেণী পেশার মানুষ।