দেবিদ্বারে প্রভাবশালী সন্ত্রাসী পরিবার কর্তৃক নিরীহ পরিবারকে হামলা ও হয়রানীর অভিযোগ

প্রকাশিত: ৭:০৯ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ২৯, ২০২০, 796 জন দেখেছেন

মামুনুর রশিদ:

কুমিল্লা দেবিদ্বার উপজেলা ঝিনাইয়া গ্রামে এলাকার প্রভাবশালী সন্ত্রাসী পরিবার কর্তৃক নিরীহ পরিবারকে হামলা ও হয়রানীর অভিযোগ পাওয়া গেছে।
তথ্যসূত্রে জানা যায়, উপজেলাস্থ ঝিনাইয়া গ্রামের সাইফুর রহমান শুভ ওরফে বেয়াদব শুভ(২৫), ফয়সাল ওরফে প্রতারক ফয়সাল(৩০), উভয় পিতা: মো মোস্তফা কমাল ওরফে সুধখোর ভাসানী সাং-ঝিনাইয়া, থানা-দেবিদ্বার, জেলা-কুমিল্লা। এলাকায় অত্যন্ত দুষ্ট দুর্দান্ত, ক্ষমতাধর, জবর দখলকারী বর্ববর সন্ত্রাসী, দাঙ্গা বাজ, ফাঁকি বাজ, সুদখোর, প্রতারক, লোভী লম্পট ও নারী লোভী। তাদের কারনে নিরহ মানুষদের অশান্তির অন্ত নেই। তারা সমাজের শান্তি ভংঙ্গের কারিগর, মিথ্যা কাহিনী রটানো কারী ক্ষতি সাদনকারী সন্ত্রাসী। তাদের বিরুদ্ধ দেশের ভিবিন্ন স্থানে একাধিক অভিযোগ রয়েছে।
আরও জানা যায়, ফয়সাল একজন প্রতারক। ছাত্র জিবনে গোপালনগর হাইস্কুলে তার নাম ছিল তুফায়েল আহমেদ, আবদুল্লাহপুর হাইস্কুলে ছিল সবুজ মুন্সি, মহেশপুর হাইস্কুলে ছিল ফয়সালা আহমেদ তারপর এক সময় সে এলাকা থেকে পালিয়ে ঢাকা চলে যায়। সেখানে লংকা বাংলা সাইন জালিয়াতি করে এবং সিটি ব্যাংকে এটিম কার্ড জালিয়াতি সে ধরাখায়। এমন অসংখ্য অগনিত অপরাধের জন্ম দাতা সে।
পক্ষান্তরে আঃ মতিন মুন্সী, পিতা- মৃতঃ হাজীঃ আলি আকবর, সাং- ঝিনাইয়া, থানা- দেবিদ্বার, জেলা- কুমিল্লা। তিনি অত্যান্ত শান্ত নিরীহ শান্তিপ্রিয় আইন মান্যকারী লোক। তিনি দীর্ঘদিন যাবৎ এলাকার উপরোক্ত জবর দখলকারী বর্বর সন্ত্রাসীদের হামলা ও হয়রানীর স্বীকার।
আঃ মতিন মুন্সী বলেন, আমার দুই ছেলে ১মেয়ে। দুই ছেলেই প্রবাসী এবং মেয়ে বিবাহিত স্বামীর বাড়িতে বসবাসরত। তাই আমি নিরীহ জনবল হীনভাবে একাই বাড়িতে বসবাস করি। আমার বাড়ির পাশেই বখাটে সাইফুর রহমান শুভ এবং ফয়সাল দের বাড়ি। তারা আমাকে নিরীহ জনবলহীন লোক পাইয়া আমার জায়গা জমি জোরপূর্বক দখল করে আমাকে ভিটে ছাড়া করার জন্য দীর্ঘদিন যাবৎ আমার উপর বিভিন্ন ভাবে অন্যায় অত্যাচার করিয়া আসিতেছে। রাস্তা ঘাটে দেখা মাএই বিভিন্ন অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ ও ভয়ভীতি প্রদর্শন করে আতঙ্কে রাখেন এবং প্রকাশ্য বলাবলি করে পুলিশ দিয়ে হয়রানি করবে। এরই ধারাবাহিকতায় গত ০৭/০১/২০২০ তারিখ আনুমানিক সন্ধা ০৬:৩০ ঘটিকার সময় তারা আমার বাড়িতে অতর্কিত হামলা চালায়। তখন আমি তার প্রতিবাদ করি। আমার শোর চিৎকারে এলাকার পার্শ্ববর্তী লোকজন আসলে তারা চলে যায়।
তিনি বলেন, এ বিষয় নিয়ে পরের দিন গ্রামের গন্যমন্য ব্যক্তিদের সমন্ময়ে শালিশের আয়োজন করলে তারা স্থানীয়দের শালিস অমান্য করে এবং পুলিশের ও সোশাল মিডিয়ার মাধ্যম আমাদের সবাইকে অনেক বেশি হয়রানি করবেন, বাড়িতে শান্তিতে কিভাবে আমরা থাকব তাও নাকি দেখে নিবে বলে হুমকী দেয়।হয়রানী করার জন্য গত ১০/০১/২০২০ তারিখে তারা দেবিদ্বার থানা আামাদের বিরুদ্ধ একটি মিথ্যা মামলা দায়ের করে।
পরে গত ০৭/০২/২০২০ইং রোজ শুক্রবার সময় বিকাল অনুমান ৪ঃ০০টায় আমার বাড়ীর পশ্চিম ভিটির বসত ঘরে উক্ত সন্ত্রাসীরা দলবল নিয়ে আমার ও আমার পরিবারের উপর হামলা করে। রড দিয়ে পিটিয়ে ঘরবাড়ি ও আসবাপত্র ভাংচুর করে, যাহার মূল্য প্রায় ষাইট হাজার টাকা। ঘরে রক্ষিত নগদ ৫০ হাজার টাকা নেয়, আমার স্ত্রী’র শ্লীলতা হানি করে এবং তার ব্যবহৃত দুই ভরি ওজনের স্বর্ণের গয়না ছিনিয়ে নেয়। এলাকার লোকজন আসলে তারা পালিয়ে যায়।
এবং ২৮/২/২০২০ইং তারিখ শুক্রবার আনুমানিক সকাল ১০ঃ০০ টায় আমি রাস্তায় বেরহলে প্রকাশ্য কিছু লোক এসে আমাকে আক্রমণ করে। তখন এলাকার কিছু লোক এসে আমাকে বাচিয়ে নিয়ে যায়। তখনই আবার আমাকে মেরে ফেলার হুমকি দিয়ে বলে আমাদের প্রতিটি লোককে জীবনে মেরে ফলবে। আমরা অশান্তির মধ্যে প্রায় দিন কাটাইতেছি।
তাদের সন্ত্রাসী কর্মকান্ডে আমরা অতিষ্ঠ। এলাকার লোকজন তাদের ভয়ে কেউ প্রতিবাদ করেনা তাই কোন উপায় না দেখে আমাদের জানমালের নিরাপত্তার জন্য গত ৪/৩/২০২০ইং তারিখে দঃবিধি ৪৪৭/ ৪৪৮/ ৩২৩/ ৩৮০/ ৪২৭/ ৫০৬/ (২)/৩৪ ধারায় মামলা করি। তিনি আরও জানান আমি মহামান্য আদালত ও আইন প্রয়োগকারী সংস্থার নিকট তাদের অন্যায় অপরাধের কঠোরতম বিচার দাবী করছি।