এম তুহিন আলম মুকুলের উদ্যোগে নিজস্ব অর্থায়নে বন্যা দুর্গত মানুষের মাঝে ত্রাণ বিতরণ।

প্রকাশিত: ৯:২১ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ১৯, ২০২০, 666 জন দেখেছেন

স্টাফ রিপোর্টার:

বিশ্বব্যাপী এখন আতঙ্কের নাম করোনা ভাইরাস। যে ভাইরাসে প্রতিদিন আক্রান্তের সাথে মৃতের সংখ্যা পাল্লা দিয়ে বাড়তেছে। করোনা প্রতিরোধে অঘোষিত লকডাউনে উপার্জন বন্ধ হয়ে যাওয়ায় নিম্ন আয়ের মানুষ বিপাকে পড়েছে। করোনা ভাইরাস মহামারী এবং আকস্মিক বন্যার ফলে স্থবির হয়ে পড়েছে কুড়িগ্রাম জেলার বিভিন্ন উপজেলার মানুষ। লোকজনের কাজ না থাকায় মানবেতর জীবনযাপন করছেন তারা।

কুড়িগ্রামের হাজার পরিবার  পরিবার বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এসব পরিবার পানিবন্দী হয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছে। হাজার হাজার মানুষ উঁচু স্থানে আশ্রয় নিয়েছে। এসব এলাকার মানুষ গবাদী-পশুসহ আশ্রয় নিয়েছে হ্যালিপ্যাড ও সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ে অস্থায়ী আশ্রয় কেন্দ্রে। এখানে তারা তাবু টাঙ্গীয়ে রাত্রী যাপন করে। কেউ কেউ বাড়িতেই টং বানিয়ে আশ্রয় নিয়েছে।

তাই অবহেলিত এই মানুষগুলো  পাশে এসে দাঁড়িয়েছে  চিলমারী উপজেলার কৃতি সন্তান এম তুহিন আলম মুকুল। সরকার এসব নিম্ন আয়ের মানুষদের বিভিন্নভাবে সহযোগিতা করছেন।

গতকাল শনিবার (১৮ জুন) বিকাল ৫ ঘটিকা চিলমারী  উপজেলার বিভিন্ন বন্যা দুর্গত স্থানে প্রায় ৩ শতাধিক পরিবারের কাছে রান্না করা খাবার বিতরণ করেন এম.তুহিন আলম মুকল ও তার বন্ধু বান্ধব।

এ সময় এম.তুহনি আলম মুকুল বানভাসিদের উদ্দেশ্যে বলেন, প্রাকৃতিক দুর্যোগে মানুষের কোন হাত নাই। করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব থেকে বাঁচতে সবাইকে সতর্ক ও সরকারি নির্দেশনা মেনে চলতে হবে। তিনি আরও বলেন বিভিন্ন সংকটপূর্ণ মুহূর্তে দুস্থ মানুষের পাশে আছি আমরা।

এদিকে অসহায় মানুষেরা  উচ্ছসিত হয়ে জানান- আমাদের মত গরিবদের  কথা কেউ ভাবে না। কিন্তু এম. তুহিন আলম বাব আমাদের মাঝে ত্রাণ দিয়ে প্রমাণ করেছেন যে আমরা অবহেলিত নই।