ধোবাউড়ায় বন্যায় প্লাবিত প্রায় অর্ধশতাদিক গ্রাম স্রোতে বিধ্বস্ত হয়ে যায় যোগাযোগ ব্যবস্থা

প্রকাশিত: ১২:০৩ অপরাহ্ণ, জুলাই ১৪, ২০২০, 503 জন দেখেছেন

জহিরুল ইসলাম,বিশেষ প্রতিনিধি (ময়মনসিংহ)

ময়মনসিংহের ধোবাউড়ায় টানা বৃষ্টি ও পাহাড়ি ঢলে প্লাবিত অর্ধশতাধিক গ্রাম। নেতাই নদীর ভাঙনের তীব্র স্রোতে বিধ্বস্ত হয়ে পরে গ্রামের যোগাযোগ ব্যবস্থা। বসত বাড়িতে বন্যার পানি ওঠায় পানিবন্দী হয়ে অনেকেই তাঁদের পরিবারের শিশু-বৃদ্ধ ও গবাদিপশু নিয়ে রয়েছেন বিপদে। বানের পানিতে ভেসে গেছে শত শত মৎস্য চাষীর সোনালী স্বপ্ন জানা যায়, উপজেলায় কয়েক শতাধিক ফিসারী ও পুকুর তলিয়ে প্রায় দুই-তিন কোটি টাকার ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে মৎস চাষীরা। কর্মহীন হয়ে চরম দূর্ভোগে পানিবন্দী অসহায় সাধারণ মানুষ। অন্যদিকে করোনার কারণে সাধারণ শ্রমজীবী পেশার মানুষের নুন আনতে পান্তা ফুরায় অবস্থা। আবার ঘরের ভিতর ঢুকছে পানি। এসব এলাকায় দেখা দিয়েছে খাদ্য,ও বিশুদ্ধ পানি সংকট। বাড়িঘরে পানি ওঠায় গবাদি পশুর আশ্রয়স্থল নিয়ে বন্যাকবলিত মানুষেরা পড়েছেন মহা-দূর্ভোগে। গবাদি পশু নিয়ে আত্বীয়দের বাড়িতেও আশ্রয় নিয়েছেন অনেকে। সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, রনসিংহপুর, রানীপুর, বহরভিটা, বেতগাছিয়া, উদয়পুর, রাউতিসহ প্লাবিত বেশকিছু গ্রামে চৌকির উপর মাচা বানিয়ে মানবতার জীবন যাপন করছেন পানিবন্দী অসহায় মানুষ। এদিকে জানা যায় উপজেলা চেয়ারম্যান ডেভিড রানা চিচিম ও নির্বাহী অফিসার রাকিবুজ্জামান অসহায়দের মাঝে ত্রানের ব্যবস্তা করেছেন।